করোনা আক্রান্ত রাসিকের স্বাস্থ্যকর্মীকে বাড়ি ছাড়তে হুমকি!

  • 328
    Shares

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মী ইতি রহমান। মহানগরীর মধ্যে কারও করোনা পজিটিভ আসলে সঙ্গে সঙ্গে মুঠোফোনে বিষয়টি অবগত করেন রোগী ও তার পরিবারকে। দেন প্রয়োজনীয় পরামর্শ।
রাসিকের স্বাস্থ্যকর্মী ইতি রহমান ও তার ফেসবুক স্টাটাস

করোনার শুরু থেকে স্বাস্থ্যকর্মী হিসেবে সামনের সারিতে থেকে কাজ করা সেই ইতি রহমানই শুক্রবার (২৬ জুন) করোনা পজিটিভ হয়েছেন।

আক্রান্ত হওয়ার খবর জানাজানি হলেই ভাড়া বাড়ির মালিক তাকে বাড়ি ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। মধ্যরাতে কল করে হয়রানি করেছেন স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির এসআইও।

বিষয়টি নিয়ে রাগে-ক্ষোভে শনিবার (২৭ জুন) রাত সাড়ে ৮টার দিকে ফেসবুকে স্টাটাস দিয়েছে নরাসিকের স্বাস্থ্যকর্মী ইতি রহমান। তিনি লিখেছেন,

‘করোনা নিয়ে কাজ করা মহাপাপ। বাড়িওয়ালা বাড়ি ছেড়ে দিতে বলেছেন। এনিয়ে অনেক কথাকাটাকাটির পর পুলিশের এসএআইও মোবাইলে ফোন করে হুমকি দিয়েছে। আমি তাকে বলেছি- আমি সিটি করপোরেশনের কর্মী। করোনা রোগীদের নিয়ে কাজ করায় আমাকে এ হেনস্থার শিকার হতে হয়, তাহলে আমরা সুরক্ষা পাবো কোথায়? আমরা যে আজ আক্রান্ত আমাদের জীবনের কি কোন দাম নাই? শান্তি চাই..’

তার স্টাটাসের পর খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তাকে হুমকি-ধামকি দেয়া পুলিশ কর্মকর্তা হলেন রাজশাহী নগরীর বিসিক পুলিশ ফাঁড়ির এসআই ইউসুফ আলী। তবে এসআই ইউসুফের সাথে যোগাযোগ করে হলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় শুনেই ফোন কেটে দেন। পরে কয়েক দফা কল করলেও রিসিভ করেন নি।

এদিকে, শনিবার (২৭ জুন) সকালে ফেসবুকে স্টাটাস দিয়ে একই রকম হেনস্থা হওয়ার অভিযোগ করেছেন করোনা আক্রান্ত সাংবাদিক মোস্তাফিজুর রহমান রকি।

সাংবাদিক মোস্তাফিজ রকির ফেসবুক স্টাটাস

সাংবাদিক রকি তার ফেসবুকে লিখেন,

‘আমি একজন করোনা রোগী। সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হওয়া শুরু! রাত্রি ৩.২৫ মিনিট। আমাকে পুলিশ ঘুম থেকে তুলে বাড়ি লকডাউন করতে আসবেন শিরোইল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মাইনুল সাহেব! এমন কি আমাদের বাড়িওয়ালার ছেলে এবং বউকেও এত রাতে ডেকে নিয়ে এসে লকডাউন করার জন্য চাপ দিতে থাকে। সকালে করা যেত না সেইটা। কতটা মানবিক পুলিশ। আমাকে আবার তারা বলে ঠিক মত চলাফেরা করতে পারেন না ভাইরাস ছড়ান কেন। আপনার বাড়ির হোল্ডিং নাম্বার বলেন, এত রাতে ঘুম থেকে উঠে তাদের সব প্রশ্নের উত্তর দিলাম। আপনাদের সহযোগিতা ওই নষ্ট সমাজের কলঙ্কের মতই। সবাই নিরাপদে থাকুন আক্রান্ত হলেই সামাজিক কলংকের তকমা কিন্তু লাগবে।’

অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আমাদের কাছে কেউ অভিযোগ করেনি। তবে সংবাদকর্মীদের মাধ্যমে এখন জানতে পেরেছি। খোঁজ-খবর নিয়ে দ্রুত জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্যকর্মী ইতি রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হচ্ছে। তার বাড়ির তথ্য নিয়ে মালিকের সাথেও কথা বলবে পুলিশ। অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে ওই বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এইচ.এ


  • 328
    Shares